Creating  healthier  tomorrow

Blogs

ওজন কমছে না কেন ?

Published by Dr.Jahangir Kabir    Feb-28-2018

Blog Image

অনেক রোগীর প্রশ্ন ডাক্তার সাহেব ওজন কি করে কমাবো ? আবার অনেকে বলেন এত চেস্টা করছি তবুও ওজন কেন কমছে না ? প্রথমেই আসি ওজন কি আসলে সমস্যা ? ওজন কমানো কি আমাদের প্রয়োজন ? ওজন কিন্তু আসলে মুল সমস্যা নয় ।

 

ধরেন আপনি ব্যায়াম করে মাংসপেশী বাড়ালেন আপনার ওজন বাড়লো এই ওজন কিন্তু আপনার সমস্যা নয় । তাহলে কোন ওজন সমস্যা ? আশা করি বুঝতে পারছেন কোন ওজনের কথা বলছি । যে ওজন আপনার চর্বি জমে হচ্ছে অর্থাৎ কিনা বিনা পরিশ্রমে ওজন বৃদ্ধি । খাচ্ছেন ঘুমাচ্ছেন সারাদিন বসে অফিস করছেন বা রান্না বান্না পারিবারিক টুকিটাকি কাজ করছেন আর শুধু পেটে চর্বি জমছে এটাকে বলে এ্যাবডোমিনাল ওবেসিটি । এই পেটে চর্বি জমে মোটা হওয়াটাই বর্তমান সময়ে আমরা বেশী দেখতে পাচ্ছি আর এটাই আসলে ক্ষতিকর ।

 

কেন ক্ষতিকর জানেন ? ক্ষতিকর কারন এই সন্চিত চর্বি আপনার ইনসুলিন ব্যাবহার হতে বাধা দেয় যার ফলে ইনসুলিন তার ভালো কাজগুলো করতে পারে না যেমন রক্তে আসা গ্লুকোজ শরীরে ঢুকাতে পারে না, যেমন রক্তনালীকে প্রসারিত করতে পারে না, যেমন লিভার থেকে অতিরিক্ত গ্লুকোজ তৈরী হওয়ায় বাধা প্রদান সেটাও করতে পারে না কিন্তু খারাপ কাজগুলো করতে পারে যেমন শরীরে সোডিয়াম ধরে রাখা যার ফলে শরীরে পানি জমে যায় শরীর ফুলে যায় আর ওজন বৃদ্ধি পায় । সবচেয়ে খারাপ কাজ যেটা করে তা হলো চর্বি গলতে বাধা দেয় শরীরে ইনসুলিনের উপস্হিতিতে ( Fat Burn ) চর্বি গলে না ।

 

ইনসুলিন ক্ষুদা বাড়িয়ে দেয় । ক্ষুদা কমানোর জন্য দায়ী যে হরমোন Leptin তার কাজ হচ্ছে মস্তিস্কে নির্দেশ পাঠানো ক্ষুদা কমানোর কিন্তু ইনসুলিন এই নির্দেশ পাঠাতে বাধা প্রদান করে তাই ইনসুলিন আপনাকে সব সময় ক্ষুদার্ত রাখে । আর যেহেতু রক্তের গ্লুকোজ শরীরের কোষে প্রবেশ করতে পারছে না তাই কোষ থেকে মস্তিস্কে নির্দেশ যায় আরো গ্লুকোজ খেতে হবে তাই দেখা যায় ডায়াবেটিস রোগীরা ফ্রীজ খুলে মিস্টিটাই আগে খেয়ে ফেলে । অথচ রক্তে চিনির পরিমান এমনিতেই বেশী আছে । এ বিষয়ে আমার একটা লেখা আছে “মিস্টিতে মৃত্যু” সেটা পড়ার অনুরোধ রইলো । এখন আমাদের বুঝতে হবে আমরা কেন ওজন কমাতে পারছি না অর্থাৎ কেন আমরা চর্বি গলাতে পারছি না । প্রথমেই বলবো আমরা কি জেনে বুঝে চেস্টা করছি ? বা সঠিক পরামর্শ মেনে চলছি ? অনেকে কিন্তু চেস্টা করছেন তবুও ওজন কমছে না ।

 

কেন কমছে না আপনারা কি বুঝতে পারছেন ? কমছে না কারন আমরা ইনসুলিন না কমিয়ে ওজন কমানোর চেস্টা করছি বরং অনেক ক্ষেত্রে চেস্টা করতে গিয়ে ইনসুলিনের পরিমান আরো বাড়ানোর ব্যাবস্হা করছি যেমন বার বার খাওয়া অর্থাৎ বেশী বেশী ইনসুলিন মনে রাখবেন ইনসুলিনের উপস্হিতিতে চর্বি কিন্তু গলবে না আর আপনার ওজনও কমবে না । কেউ কেউ আছেন মনে করেন চর্বি খেলে ওজন বাড়ে তো তারা চর্বি জাতীয় খাবার বন্ধ করে দেন এমনকি কয়েকদিন খাওয়া এতই কমিয়ে ফেলেন যে পরবর্তীতে আর সেটা ধরে রাখতে পারেন না শরীর এত দুর্বল হয় যে এরপর এমন খাওয়া শুরু করেন ওজন তখন আরো বেশী বাড়তে থাকে। কেউ কেউ ব্যায়াম শুরু করেন তো প্রথম কয়দিন ওজন একটু কমে কারন ঘামের কারনে শরীর থেকে পানি বের হয় কিন্তু কিছুদিন পরে ওজন আর কমে না আর আপনিও কোন রেজাল্ট না পেয়ে ব্যায়াম বন্ধ করে দেন আর এর পরবর্তীতে ওজন আগের চেয়ে আরো দ্রুত বেগে বাড়তে থাকে ।

 

অনেক রোগী এসে বলেন স্যার সব কথা তো শুনছি কিন্তু তবুও ওজন কমছে না ওনারা চর্বি খাচ্ছেন না হাটছেন তবুও ওজন কমছে না এবং আসলেই তাই কারন ওনার শরীরে তো ইনসুলিন বেশী আছে সেই কারনে যতই চেস্টা করছেন ক্ষুদার সাথে লড়াই করে পরাজিত হচ্ছেন মেজাজ খিটখিটে হচ্ছে কাজে মনযোগ দিতে পারছেন না ভালো ঘুমাতে পারছেন না একসময় রনে ভংগ দিচ্ছেন এবং ভাবছেন ওজন কমানো ওনার কর্ম নয় বেচে থাকাটা জরুরী ওজন কমাতে গিয়ে তো আর মরে যাওয়া যাবে না ।

 

তাহলে আপনি করবেনটা কি ? আপনাকে প্রথমেই বুঝতে হবে মস্তিস্কের সাথে লড়াই করা যায় না এতে আপনিই পরাজিত হবেন । তাই তাকে ঠিক রেখেই আপনাকে যা করার করতে হবে । প্রথম কাজ হলো Quality sleep যাকে বলে পর্যাপ্ত ঘুম অন্তত: 7 ঘন্টা প্রতিদিন নিরবিচ্ছিন্ন ঘুম । তাড়াতাড়ি ঘুমাতে যাওয়া আর ভোরে ঘুম থেকে ওঠা । ঘুমানোর অন্তত: এক থেকে দুই ঘন্টা পূর্বে সকল প্রকার ইলেকট্রনিকস ডিভাইস থেকে দুরে থাকা যেমন মোবাইল ল্যাপটপ টিভি এই সব । রুম পুরো অন্ধকার রাখা এবং নি:শব্দ রাখা এবং রুমের বাতাসে যেন পর্যাপ্ত অক্সিজেন থাকে সেটা খেয়াল রাখা । রুম যেন বদ্ধ না হয় অতিরিক্ত গরম যেনো না হয় । ঘুম থেকে ভোরে উঠেই যেন কোন কাজে জড়িয়ে পড়বেন না নামাজ পড়ুন বা পুজা আর্চনা প্রার্থনা করুন আপনার ধর্ম অনুযায়ী মেডিটেশন করুন তার আগে মেডিটেশন শিখুন মস্তিস্ককে নির্দেশ দিন আপনি কি করতে যাচ্ছেন তাকে সেভাবে পরিচালিত করতে সচেস্ট হন ।

 

ইয়োগা বা যোগ ব্যায়াম করুন এতে দেহ মনের এক অপূর্ব সমন্নয় করার চেস্টা করুন আর সর্বাবস্হায় রিলাক্স থাকার চেস্টা করুন মনে রাখবেন আপনি যত চাপে থাকবেন কম ঘুমাবেন বেশী ছোটাছুটি করবেন ততই আপনার শরীরে বেশী বেশী stress hormone নি:সৃত হবে অর্থাৎ স্টেরয়েড আর আপনি কোনভাবেই ওজন কমাতে পারবেন না তাই শীথিলায়ন অত্যন্ত জরুরী প্রতিদিন শিথিলায়ন চর্চা করুন । এরপর আসুন ব্যায়াম এটা করতেই হবে ব্যায়াম আপনার মস্তিস্কে অক্সিজেন দিবে ইনসুলিনের সাহায্য ছাড়াই রক্তের জমে থাকা গ্লুকোজ শরীরের কোষে পৌছে দিবে আপনি শক্তি পাবেন যদি HIIT ( High Intensity Interval Training ) exercise করতে পারেন তাহলে তো কথাই নেই কারন তাহলে আপনি কার্বোহাইড্রেট খেলেও পরবর্তী বেশ কয়েক ঘন্টা ইনসুলিনের সাহায্য ছাড়াই গ্লুকোজ শরীরের কোষে পৌছে যাবে অর্থাৎ ইনসুলিন রক্তে আসবে না অর্থাৎ চর্বি গলতে আর বাধা নেই ।

 

ব্যায়াম করতে জিমনেশিয়ামে যাওয়ার প্রয়োজন নেই হাটুন, আস্তে আস্তে দৌড়ান খুব ধীরে ধীরে শুরু করুন , সাতার কাটুন , সাইকেল চালান, ফ্রী হ্যান্ড ব্যায়াম গুলো করুন যা ছোটবেলায় স্কুলে অনেক করেছেন, খেলাধুলা করুন যাতে শরীর চর্চা হয় , একটা গ্রুপ তৈরী করুন একেকদিন একেকটা করুন যেকোন কাজই মনের আনন্দে করুন ।

 

 

Written by : Dr.Jahangir Kabir