Creating  healthier  tomorrow

Blogs

ইফতারে ফল খাবার পূর্বে দরকার বাড়তি সতর্কতা !

Published by Lutfun Nahar Mukta    May-31-2018

Blog Image

বছরের বাকি সময় গুলোতে খাবারের তালিকায় ফলের স্থান থাকলেও তুলনামূলক ভাবে রমজানে এর চাহিদা বেড়ে যায় । রোজাদারদের শুধু দেশি মৌসুমি ফল না বিদেশি ফলের চাহিদাও থাকে ।

বেশির ভাগ মানুষেরই এই ধারনা যে, সারাদিন রোজা রাখার পর একটি ফল যেমন স্বাস্থ্যের জন্য ভালো ঠিক তেমনি অন্যান্য খাবারের যেমন ভেজাল থাকে সে শঙ্কাও কম থাকে। কিন্তু আসলেই কি তাই?

বিগত কয়কবছরে মৌসুমি দেশি বিদেশি বেশ কিছু ফলের উপর পরীক্ষা করে দেখা গেছে ফলের সাথে যুক্ত রয়েছে নানান রকম রাসায়নিক পদার্থ যেমন ফরমালিন, কার্বাইড। যা আমরা খালি চোখে দেখতে পারিনা ঠিক ই কিন্তু দৈনন্দিন তা খাবারের মাধ্যমে আমাদের শরীরে প্রবেশ করছে।

যদি আমরা ফল ও সবজি সঠিক উপায় না পরিষ্কার করে খেয়ে ফেলি তাহলে খাবারের পাশাপাশি সেই রাসায়নিক পদার্থ গুলোও আমাদের দেহে প্রবেশ করছে যা আমাদের সাস্থের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর।

সুতরাং আমাদের উচিৎ খাবারের আগে অবশ্যই এর নিশ্চিত করা যে খাবার টি ঝুঁকি মুক্ত।বাসায় খুব অল্প সময় ও সল্প পরিশ্রমে ফল থেকে ফরমালিন তথা রাসায়নিক পদার্থ দূরীকরণের কিছু উপায় দেওয়া হলঃ


১। ভিনেগারঃ

ভিনেগার একটি অধিক শক্তিশালী উপাদান যা ফল এবং সবজি থেকে জীবাণু এবং কীটনাশক দূর করতে সাহায্য করে।এই পক্রিয়ায় প্রায় ১০০ ভাগ ফরমালিন দূর করা সম্ভব।

  • প্রথমে একটি পাত্রে ৭/৮ কাপ পানি নিন।
  • এরপর এক কাপ পরিমান সাদা ভিনেগার পানিতে ঢালুন।
  • ফল বা সবজি ভিনেগার যুক্ত পানিতে ডুবিয়ে রাখুন।
  • ১৫ মিনিট পর একটি পরিষ্কার বাটিতে ফল এবং সবজি রাখুন।

২। খাবার সোডাঃ

খাবার সোডা ফল ও সবজি থেকে ক্ষতিকারক কীটনাশক ও ফরমালিন অপসারণ করতে সাহায্য করে।

  • একটি বড় বোলে ৫ গ্লাস পানি নিন।
  • পানিতে ৪ টেবিল চামচ খাবার সোডা যুক্ত করুন।
  • ফল ও সবজি গুলো পানিতে ডুবিয়ে রাখুন।
  • ১৫ মিনিট পর পানি থেকে তুলে পরিষ্কার পাত্রে রাখুন
  • খাওয়ার আগে ভালো করে মুছে নিন।

 

৩। হলুদ গুড়োঃ

হলুদ একটি মশলা জাতিও উপাদান যা অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল হিসাবে কাজ করে। তার মানে এটি ফল বা সবজি থেকে জীবাণূ সম্পূর্ণ ভাবে ধংস করে দিতে পারে।

  • একটি বোলে ফুটানো পানি নিয়ে তাতে ৫ টেবিল চামচ হলুদ গুড়ো মিশিয়ে নিন।
  • হলুদ গুড়া মিশান পানিতে ফল গুলো দিয়ে ভালো করে নাড়িয়ে নিন।
  • কিছুক্ষন পর ফলগুলোকে উঠিয়ে আরও একটি বোলে পরিষ্কার পানির নিয়ে তাতে ডুবিয়ে রাখুন।
  • এরপর ফলগুলো একটি শুকনো কাপড় দিয়ে ভালো করে মুছে আলদা করে রাখুন।
  • আপনার ফল ও সবজি গুলো এখন খাওয়ার জন্য নিরাপদ। 

 

৪। লবনঃ

সারা বিশ্বে সবজায়গায় পাওয়া সুপরিচিত এই লবণ একটি জটিল যৌগ। এর বিভিন্ন দিক রয়েছে।

শিলা লবণ এবং স্থল লবণ কীটনাশককে দ্রুতই মেরে ফেলে।

  • একটি পাত্রে পানি দিয়ে তাতে এক কাপ পরিমান লবণ নিন।
  • লবন ভালো করে পানিতে মিশে যাওয়ার পর তাতে ফল বা সবজি ভিজিয়ে রাখুন।
  • ১০ মিনিট পর লবণ পানি থেকে ফল গুলো উঠিয়ে তা আরও একটি পরিষ্কার পানির পাত্রে রাখুন।
  • এভাবে ৪/৫ বার পরিষ্কার পানিতে ধুয়ে শুকনা কাপড় দিয়ে ভালো করে মুছে নিন।
  • এবার তা সম্পূর্ণ জীবানু মুক্ত।

 

এই উপায় গুলো সঠিকভাবে অবলম্বনে ফল বা সবজিতে ব্যবহৃত ৯০ শতাংশ পরিমান কীটনাশক পদার্থ বা ফরমালিন দূরকরা সম্ভব।

Writer: Lutfun Nahar Mukta(Co Founder and CCO, Meditor Health)

 

References:

https://bd-pratidin.com/

https://voiceofsatkhira.com

https://www.youtube.com

https://www.youtube.com/watch?v=LOYlShOnUkQ&t=2s